কোম্পানীগঞ্জের গণমানুষের অতি আপনজন উপজেলা চেয়ারম্যান বাদল

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জের দক্ষিণের নদী ভাঙ্গা এলাকার বাসিন্দাদের খবর নেয়া, রাস্তা ভেঙ্গে চলাচলের অসুবিধা, খালের পানি নিষ্কাশন, হাসপাতালে রোগীদের খোঁজ নেয়া, দলীয় কর্মসূচীতে অংশ নেয়া, দলের দুঃসময়ের অসুস্থদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে দেখে আসা, গরীব মেধাবীদের বৃত্তি দেয়া, অসহায় মেয়ের বিয়েতে উপস্থিত হওয়া কোথায় নেই তাঁর উপস্থিতি। সে আর কেউ নন, কোম্পানীগঞ্জের গণমানুষের মন জয় করা জনপ্রতিনিধি সবার প্রিয় উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদল।

সরেজমিনে দেখা গেছে, মিজানুর রহমান বাদল উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে এ পদের জনপ্রতিনিধির দায়িত্ব কি তা জানতে শিখেছে এ অঞ্চলের জনগন। অতীতের উপজেলা চেয়ারম্যানদের ছাড়িয়ে জনসেবার দিক থেকে তিনি মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছে গেছেন।

স্থানীয় সাংসদ বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং দেশের আলোচিত সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের নিজ উপজেলার চেয়ারম্যান হিসেবে মন্ত্রীর সহযোগিতায় এলাকার বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পের তদারকিসহ দলের সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের সাথে সুসম্পর্ক রেখে সকল কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছেন।

অন্যদিকে মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের নির্দেশে উন্নয়ন প্রকল্প দেখাশুনার পাশাপাশি মন্ত্রীর পক্ষ থেকে গরীব দুঃখী ও দলীয় নেতাকর্মীদের সাহায্য সহযোগিতাও করে যাচ্ছেন হাত খুলে। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে প্রত্যেক ইউনিয়নে প্রচার প্রচারণাও করে যাচ্ছেন তৃণমূলের এ নেতা।

এছাড়া কোম্পানীগঞ্জের রাজনীতির বরপুত্র ও সর্বদলীয় সহাবস্থানের রাজনীতির রূপকার মন্ত্রীর ছোটভাই বসুরহাট পৌর মেয়র আবদুল কাদের মির্জার সহযোগী হিসেবে সমগ্র উপজেলার রাজনীতি ও উন্নয়ন দেখাশুনা করে অল্পদিনেই জনসেবার অনন্য নজির স্থাপন করেছেন মিজানুর রহমান বাদল।

উপজেলার জনপ্রতিনিধিত্বের পাশাপাশি আওয়ামী রাজনীতিতেও নিজের অবস্তান সুদৃঢ করেছন তিনি। এক সময়ের উপজেলা যুবলীগ সভাপতি বর্তমানে নোয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদদকের দায়িত্ব পালন করছেন। এছাড়াও তিনি উপজেলা চেয়ারম্যান হওয়ার আগ পর্যন্ত ৫নং চরফকিরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হিসেবেও সুনামের সাথে দায়িত্ব পালন করেছেন।

এরমধ্যে তিনি শিক্ষাখাতে বিশেষ অবদানের জন্য স্বর্ণপদক এবং স্বাস্থ্য খাতে বিশেষ অবদানের জন্য শ্রেষ্ঠ চেয়ারম্যানের পদকসহ কর্মের স্বীকৃতি হিসেবে অসংখ্য পদকে ভুষিত হন।

মিজানুর রহমান বাদল বলেন, আমার রাজনৈতিক গুরু ওবায়দুল কাদের এবং আমার নেতা আবদুল কাদের মির্জাসহ দলের সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের সহযোগিতায় প্রকৃত জনসেবা জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছাতে চাই। এজন্য তিনি সকলের আরও বেশি বেশি সহযোগিতা কামনা করেছেন।

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.