নোয়াখালীতে বিএনপি-পুলিশ সংঘর্ষ, পুলিশ’সহ আহত-২০

কুমিল্লার একটি আদালতে বিএনপির চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া’সহ ১৪৮জন নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির প্রতিবাদে নোয়াখালী জেলা শহর মাইজদীতে বিক্ষোভ মিছিল বের করে জেলা বিএনপি। এসময় পুলিশ তাতে বাধা দিলে উভয় পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ কয়েক রাউন্ড শর্টগানের গুলি ছুঁড়ে। সংঘর্ষে ৩পুলিশ সদস্যসহ অন্তত ২০জন আহত হয়েছেন। ঘটনাস্থল থেকে ৩জনকে আটক করেছে পুলিশ।

বুধবার (১১ অক্টোবর) সকাল ১১টার দিকে শহরের রশিদ কলোনী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। আটককৃতরা হচ্ছেন- জেলা যুবদলের সভাপতি মাহবুল আলম আলো ও সদর থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ভিপি জসীম উদ্দিন’সহ ৩ জন।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বিএনপির চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া’সহ ১৪৮জন নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির প্রতিবাদে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মো. শাহজাহানের নেতৃত্বে বিএনপির নেতাকর্মীরা বুধবার সকালে জেলা শহর মাইজদীতে বিক্ষোভ মিছিল বের করার চেষ্টা করলে পুলিশ বাধা দেয়।

পরে সকাল ১১টার দিকে পুনঃরায় শহরের রশিদ কলোনী এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল বের করলে বিএনপি নেতাকর্মীদের সাথে পুলিশের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এসময় বিএনপি নেতাকর্মীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল ছুঁড়লে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ শর্টগানের কয়েক রাউন্ড রাবার বুলেট ছুঁড়ে। সংঘর্ষে ৩পুলিশ সদস্য ও বিএনপির ১৭ নেতাকর্মী আহত হয়। এসময় কয়েকটি গাড়ী ভাঙচুরের ঘটনাও ঘটে।

সুধারাম মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ার হোসেন জানান, শহরের আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে সকল ধরনের মিছিল করতে নিষেধ করা হয়েছে। পুলিশের বাধা অতিক্রম করে মিছিলের মাধ্যমে শহরে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করায় পুলিশ তাদের বাধা দিলে বিএনপি নেতাকর্মীরা পুলিশের ওপর হামলা চালায়। এতে তিন পুলিশ সদস্য আহত হয়।

ওসি আরো জানান, পুলিশের ওপর হামলা ও গাড়ী ভাঙচুরের ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

প্রতিবেদক/এমআরআর/১১ অক্টোবর

Leave a Reply

Your email address will not be published.