সেনবাগে বিএনপির সম্মলন পন্ড, গ্রেফতার -১

সেনবাগ: সম্মেলনে দাওয়াত না দেওয়ায় নেয়াখালীর সেনবাগ উপজেলার কেশারপাড় ইউনিয়নে বিএনপির ওয়ার্ড কমিটির প্রথম সম্মলনে হামলা ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে।

ঘটনাটি বুধবার সন্ধ্যায় উপজেলার কেশারপাড় ইউপির ৭নং ওর্য়াড কেশারপাড় স্কলার একাডেমীতে ঘটে।

পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে বেলাল হোসেন ভুইয়া নামে একজন আটক হয়। এতে সম্মেলন টি পন্ড হয়ে যায়। সভায় উপস্থিত আবু ইউসুপ মজুমদার,ম্াষ্টার সহিদ সহ উপস্থিত নেতৃবিন্দ দ্রুত স্থানত্যাগ করে।

স্থানিয় সুত্রে জানাগেছে, সাবেক বিরুদী দলীয় চিপ হুইপ জয়নুল আবদিন ফারুকের অনুসারীরা কেশারপাড় ইউনিয়ন বিএনপি বুধবার বিকেলে ইটবাড়ীয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কেশারপাড় ইউনিয়ন বিএনপির আহবায়ক কমিটির প্রথম ওয়ার্ড কমিটির সম্মেলনের জন্য বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ থেকে মুখিক ভাবে অনুমোতি নেয় সভা করার জন্য। কিন্তু এর আগে একই দিন একই সময়ে বিএনপির বিবাদমান অপর বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য কাজী মফিজুর রহমানের অনুসারীরা এর আগে সভা করার জন্য লিখিত অনুমোতি নেয় কতৃপক্ষ থেকে। এতে বিদ্যালয় কমিটি বিপাকে পড়ে যায়। তারা বিষয়টি নিয়ে দ্রুত আলোচনা করে পূর্বে দেয়া অনুমোতি বাতিল করে কাউকে বিদ্যালয়ে সভার ব্যবহার করতে দেওয়া হবে না বলে সিদান্ত জানিয়ে দেয়া হয়। ফারুক অনুসারীরা স্থান ও সময় পরিবতণ করে পার্শ্ববতি স্কলার একাডেমীতে সম্মেলনের কার্যক্রম শুরু করে। এরি মধ্যে যুবনেতা বেলাল হোসেন ভুইয়া নীজেকে সেচ্চা সেবক দলের সভাপতি দাবি করে তাকে সভায় দাওয়াত না দেওয়ার অভিযোগ তুলে কমান্ড স্টাইলে এলোপাতাড়ি হামলা শুরু করে। এতে ৫/৬ জন আহত হয় ও প্রতিষ্টানের আসবাব পত্র ভাংচুর হয়। আহতদের কে স্থানিয়রা উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে। তাদের মধ্যে আবদুল নাম জানাগেলেও বাকীদেও পরিচয় জানায়ায়নি। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনার স্থলে পৌচে বেলাল হোসেনন ভুইয়া কে আটক করে। সময় সভায় উপস্থিত নেতৃবিন্দ কৌশলে স্থানে ত্যাগ করে চলে যায় এতে সভাপটি পন্ড হয়ে যায়। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে কেশারপাড় ইউনিয়ন বিএনপির আহবায়ক মাস্টার সহিদ উল্ল্যা জানায়, কেন এদরনের ঘটনা ঘটেছে বা কি জন্য ঘটেছে কারন জানা যায়নি।
এ ব্যাপারে সেনবাগ থানার অফিসার ইনর্জাচ (ওসি) মো হারুন অর রশিদ চৌধুরী জানায়, হামলার কোন ঘটনা তার জানানেই।

প্রতিবেদক/নোয়াখালীনিউজ/এসইউ

Leave a Reply

Your email address will not be published.