সোনাইমুড়ীতে ব্যবসায়ীর হাত কেটে নিলো সন্ত্রাসীরা

সোনাইমুড়ী: চাঁদা না দেওয়ায় নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী উপজেলার দেওটি ইউনিয়নের আমির হোসেন সোহাগ (২৩) নামে এক ব্যবসায়ীর হাত কেটে আলাদা করে দিয়েছে সন্ত্রাসীরা।

মঙ্গলবার দুপুরে গুরুতর আহত অবস্থায় ব্যবসায়ী সোহাগকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আহত আমির হোসেন সোহাগ উপজেলার দেওটি ইউনিয়নের পতিশ গ্রামের আবদুল মালেকের ছেলে। সে স্থানীয় কড়িহাটি বাজারে বাবার সাথে নিজেদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করে।

আহত সোহাগের চাচাতো ভাই হানিফ জানায়, ইউনিয়নের আওয়ামী নেতা কিং মোজাম্মেলের অনুসারী সন্ত্রাসীরা দীর্ঘ ধরে কড়িহাটি বাজারের ব্যবসায়ী আবদুল মালেক ও তার ছেলে সোহাগের চাঁদা দাবি করে আসছিলো। চাঁদা না পেয়ে ক্ষিপ্ত হয়ে সোমবার রাতে পতিশ গ্রামের সোহাগের বাড়ির পাশের রাস্তায় কিং মোজাম্মেলের অনুসারি বড় আজগর (২৫), আলো (২৬), লিটন (২৬), ছোট আজগর (২৪), নজরুল (২৫) সহ ১০-১২ জনের একদল সন্ত্রাসী অতর্কিতে হামলা চালিয়ে বেদম মারধর করে সোহাগকে। একপর্যায়ে সন্ত্রাসীরা সোহাগের ডান হাত কেটে সম্পূর্ণ আলাদা করে ফেলে। পরে সোহাগের আত্মচিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে আসলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায।

স্থানীয়রা গুরুতর আহত অবস্থায় সোহাগকে উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। পরে তাকে সেখান থেকে রাতেই নোয়াখালী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। নোয়াখালী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসকরা দ্রুত উন্নত চিকিৎসার তাকে ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে নেওয়ার পরামর্শ দিলে মঙ্গলবার দুপুরে সোহাগকে ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তবে চিকিৎসকরা জানিয়েছে কাটা হাতটি আর জোড়া লাগানো যাবে না।

সোনাইমুড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইসমাঈল মিঞা বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, রাতেই ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। আহত সোহাগের পরিবারকে থানায় লিখিত অভিযোগ দিতে বলা হয়েছে। অভিযোগ পেলে যথাযথ আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

প্রতিবেদক/নোয়াখালীনিউজ/এসইউ

Leave a Reply

Your email address will not be published.