দাগনভূঞায় তালুকদার বাড়িতে আগুন দিলো দুর্বৃত্তরা

দাগনভূঞা: ফেনীর দাগনভূঞা উপজেলার জায়লস্কর ইউনিয়নের ওমরপুর গ্রামের অসহায় বৃদ্ধার সেই বাড়িটি ফের দখলে ব্যর্থ হয়ে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। শুক্রবার ভোরে দুর্বৃত্তরা আগুন লাগিয়ে পালিয়ে গেলে মুহুর্তের মধ্যে পুরো বাড়ি পুড়ে যায়। ইতিপুর্বে বাড়িটি দখল করতে গিয়ে সংর্ঘষে একজন নিহত হয়েছে।

বাড়ির মালিক রহিমা খাতুন জানান, জায়লস্কর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি পেয়ার আহম্মদ ওরফে কনু পেয়ার তার পাশ্ববর্তী বাড়ির বাসিন্দা। কনু পেয়ার ভুয়া দলিল বানিয়ে দীর্ঘদিন থেকে তালুকদার বাড়িটি দখলের পাঁয়তারা করছে। এর আগে একাধিকবার পেয়ার আহম্মদের হামলার শিকার হন রহিমা খাতুনের পরিবার। একপর্যায়ে তার হামলা-মামলার ভয়ে বাড়ি থেকে পালিয়ে আত্মগোপনে চলে যায় অসহায় পরিবারটি। এ সুযোগে শুক্রবার ভোরে বাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেয় দুর্বৃত্তরা। পরে ফায়ার সার্ভিস ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

দাগনভূঞা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবুল কালাম আজাদ জানান, কীভাবে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটেছে এখনও তা নিশ্চিতভাবে বলা যাচ্ছেনা। কেউ থানায় অভিযোগ দেয়নি। অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

উল্লেখ্য, দাগনভূঞার জায়লস্কর ইউনিয়নের ওমরপুর গ্রামে মুসলিম তালুকদার বাড়ির ৫৪ শতক সম্পত্তি নিয়ে দীর্ঘ ৪০ বছর থেকে রহিমা খাতুনের পরিবারের সাথে পাশের চানপুর গ্রামের মফিজুর রহমান নামে অপর এক পক্ষের বিরোধ চলে আসছিল। এনিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে মামলা চলে আসছিল। নিজেরা দখল করতে না পেরে দুই বছর আগে মফিজুর রহমান গং আওয়ামী লীগ নেতা পেয়ার আহম্মদ ওরফে কনু পেয়ারের স্মরনাপন্ন হয় এবং ক্রয়-বিক্রয় বায়নাপত্র করে। এরপর গত বছরের ২৫ মে পেয়ারের নেতৃত্বে বহিরাগত সন্ত্রাসী নিয়ে প্রথম দফা ওই বাড়িতে হামলা, ভাংচুর ও লুটপাট চালায়। পরবর্তীতে গত বছরের ১৪ অক্টোবর রাতে আবারও সন্ত্রাসী নিয়ে হামলা করে। সংঘর্ষে ফেনী সদর উপজেলার পাঁচগাছিয়া ইউনিয়নের মাথিয়ারা গ্রামের আবদুর রহমানের ছেলে নুর নবী নাঈম (৩২) নিহত ও ৩ জন আহত হয়।

ফেনী প্রতিনিধি/নোয়াখালীনিউজ/এসইউ

Leave a Reply

Your email address will not be published.