সেনবাগে ছাত্রীর শ্লিলতাহানী অভিযোগে শিক্ষককের কারাদন্ড

সেনবাগ: প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনি পরিক্ষায় কেন্দ্রের এক ছাত্রীর শীøলতাহানীর অভিযোগে নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলায় মোঃ ইব্রাহিম নামে এক শিক্ষকের ১বছরের কারাদন্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমান আদালত।

মঙ্গলবার বিকেলে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যলয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত এ আদেশ দেন। পরে তাকে সেনবাগ থানার মাধ্যমে ওই শিক্ষককে জেল হাজতে প্রেরন করা হয়।

অভিযুক্ত শিক্ষক উপজেলার কাদরা ইউপির চাঁদপুর খলিফা পাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষক। সে উপজেলার ডমুরুয়া ইউনিয়নের নলুয়া গ্রামের আবদুর রবের পুত্র।

জানাযায়, মঙ্গলবার পিএসসি পরীক্ষায় বাংলাদেশ ও বিশ্ব পরিচয় বিষয়ের পরিক্ষা চলাকালে উপজেলার গাজীরহাট কেন্দ্রের গাজীরহাট সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ২নং হলে পরিকোট সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এক ছাত্রীকে হলে দায়িত্বরত শিক্ষক ইব্রাহিম একটি প্রশ্নের উত্তর জানতে চায়। শিক্ষক ছাত্রীর সে দুর্বলতার সুযোগ নিয়ে তার কাছে গিয়ে শরীরের স্পর্শকাতর স্থানে হাত দিয়ে শীøলতাহানি করে। সাথে সাথে হলের সকল শিক্ষার্থী এ ঘটনার প্রতিবাদ করে ছাত্রী নিজে এসে শিক্ষকদের জানায়। বিষয়টি সাথে সাথে কেন্দ্রের দায়িত্বে থাকা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আতিকুল ইসলামকে অবগত করে। ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ছাত্রী ও অভিযুক্ত শিক্ষক ইব্রাহিমকে কেন্দ্র সচিবের অফিসে নিয়ে আসে তার জিম্মায় রেখে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তাকে জানায়।

উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা এমরান হোসেন ঘটনা স্থলে এসে অভিযুক্ত শিক্ষককে নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে নিয়ে আসে। বিকেলে অভিযুক্ত শিক্ষক ইব্রাহিমকে জিজ্ঞাসাবাদ করে ওই ছাত্রীকে শ্লীলতাহানীর অভিযোগ প্রমানিত হয়। এ সময় নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আলম অভিযুক্ত শিক্ষক মোঃ ইব্রাহিমকে ১বছরের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করে। পরে তাকে সেনবাগ থানার মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরন করা হয়েছে।

নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আলম ঘটনার সত্যতার স্বীকার করে বলেন শিক্ষক মোঃ ইাব্রাহিমকে ১ বছরের সাজা প্রদান করা হয়েছে।

প্রতিবেদক/নোয়াখালীনিউজ/এসইউ

Leave a Reply

Your email address will not be published.