ভিডিও কনফারেন্সে নোয়াখালীতে ৩’শ ২৪ কোটি টাকার প্রকল্পের উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী

সদর: নোয়াখালীর দীর্ঘদিনের জলাবদ্ধতা নিরসন, বন্যা নিয়ন্ত্রন ও নিষ্কাশন ব্যবস্থা উন্নয়নে বর্তমান সরকার ৩শত ২৪ কোটি টাকা ব্যয়ে এ প্রকল্পের কাজ বাস্তবায়ন করতে চলছে। নোয়াখালীর দুঃখ নোয়াখালী খাল সংস্কার ও পুন:খননের সংবাদে এলাকার সকল শ্রেণির মানুষের মাঝে আনন্দের জোয়ার বইছে। গত ২৫ ডিসেম্বর সেনাবাহিনীর প্রকৌশল বিভাগের প্রধান জেনারেল সিদ্দিকুর রহমানকে সাথে নিয়ে প্রকল্প এলাকা পরিদর্শন করেছেন সড়ক, পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

আজ বৃহস্পতিবার (৪ জানুয়ারি) সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁর কার্যালয় থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এই প্রকল্পের কাজ আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করবেন। পানি সম্পদ মন্ত্রনালয়ের অর্থায়নে বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড ও বাংলাদেশ সেনাবাহিনী যৌথভাবে এই প্রকল্পের কাজ বাস্তবায়ন করবে।

এই প্রকল্পে নোয়াখালী খাল পুন:খনন এবং জেলার ২৩টি খালের পুন:খনন সহ ১’শত ৬০ বর্গ কিলোমিটার এলাকার পানি নিষ্কাশন ব্যবস্থার কাজ বাস্তবায়ন করা হবে। প্রকল্প বাস্তবায়নের মধ্যে রয়েছে জেলার বেগমগঞ্জ, কোম্পানীগঞ্জ, কবিরহাট ও সদর উপজেলার খাল সমূহ।

এছাড়াও প্রকল্পের মধ্যে রয়েছে ১’শত ৮২ কিলোমিটার খাল পুন:খনন, বামনি নদীতে ড্রেজিং সহ ২টি স্লুইচ গেইট নির্মাণ, লবনাক্ত পানি প্রবেশ রোধে বামনী ১৯-ভেল্ট রেগুলেটর নির্মাণ, বামনি নদীর উপর ক্লোজার নির্মাণ, স্বন্দ্বীপ চ্যানেল, মুছাপুর, গুচ্ছু গ্রাম, চর কচ্চপিয়া, চর ল্যাংটা ও চর এলাহী এলাকার ১০ কিলোমিটার নদী তীর সংরক্ষণ।

২০২১ সনের জুন মাসে এই প্রকল্পের কাজ শেষ হলে জেলার প্রধান প্রধান খাল সমূহে নিষ্কাশন ব্যবস্থার উন্নয়ন, জলাবদ্ধতা দূরীকরণ, স্বন্দ্বীপ চ্যানেলের বামতীর ভাঙ্গন রোধ থেকে রক্ষা পাবে এবং জন সাধারণের বাড়ী-ঘর, স্কুল, মসজিদ, সাইক্লোন শেল্টার, আবাদী জমি, ফসলাদি ও জানমাল রক্ষা হবে।

প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রকল্প উদ্বোধন শেষ হওয়ার পরপরই কবিরহাট উপজেলার ধান শালিক এলাকা থেকে এই প্রকল্পের খাল পুন:খনন কাজ শুরু করা হবে।

উল্লেখ্য ২০১৬ সালের ১০ নভেম্বর প্রধানমন্ত্রী একনেক এর সভায় এই প্রকল্পটি অনুমোদন করেন।

প্রতিবেদক/এমআরআর

Leave a Reply

Your email address will not be published.