কোম্পানীগঞ্জে অপহৃত উদ্ধার, গ্রেফতার-৪

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার চাপরাশিরহাট বাজার থেকে রোববার রাতে ২ জন প্রেস শ্রমিক অপহৃত হয়। অপহরণকারীরা ২ শ্রমিককে অপহরণ করে ২ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবী করে প্রেসের মালিক আবদুল মন্নানের কাছে।

সোমবার রাতে কবিরহাট থানার পুলিশ চরএলাহি ইউনিয়ন পরিষদ থেকে ৪ অপহরণকারীদেরকে উদ্ধার করে কবিরহাট থানায় নিয়ে যায়। রাতে পুলিশ অহহরণকারীদেরকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করেছে। অপহরণ কাজে ব্যবহৃত মাইক্রোবাস আটক করেছে পুলিশ।

সোমবার রাতে চরএলাহি ইউনিয়নের ছাদেক মিয়ার এগ্রো ফিসারিজ খামার থেকে অপহৃত প্রেস শ্রমিক রুবেল ও মাহমুদুল হাছান বাবুকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে। অপহৃতরা চাপরাশিরহাট বাজারের ফোকাস অফসেট প্রেসের শ্রমিক ছিল।

উদ্ধারের পর অপহৃতরা জানান, রোববার রাতে তাদেরকে অপহরণকারীরা একটি মাক্রোবাস গাড়িতে তুলে চোখ বেঁধে অজ্ঞাত নির্জন বাড়িতে নিয়ে যায়। সারা রাত অপহরণকারীরা অপহৃত ২ শ্রমিককে নির্যাতন করে। সেখান থেকে সোমবার ভোর বেলা চোঁখ বাঁধা অবস্থায় ২ শ্রমিককে ছাদেক মিয়ার এগ্রো ফিসারিজ খামারে নিয়ে রাখে। প্রেস মালিক আবদুল মন্নানের কাছে ২ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করা হয়। বিষয়টি স্থানীয় এলাকাবাসী টের পেয়ে তারা সংঘঠিত হয়ে অপহৃতদেরকে উদ্ধার ও অপহরণকারীদের আটক করে রাখে।

সোমবার সকালে চাপরাশিরহাট ফোকাস অফসেট প্রেসের মালিক আবদুর মন্নান তার প্রেসের ২ শ্রমিক অপহরণের বিষয়ে কবিরহাট থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছে।

স্থানীয় লোকজন ৫ অপহরণকারীর মধ্যে ৪ জনকে আটক করেছে। অপহরণকারীরা হল, কবিরহাট উপজেলার উপদ্দিলামছি গ্রামের মফিজ উল্যার ছেলে মোঃ জহির উদ্দিন, একই এলাকার শাহাদাত হোসেনের ছেলে আবু নোমান নাহিদ, মিন্নত আলী ব্যাপারী বাড়ির মুরশিদ আলমের ছেলে ইউছুপ নবী, মিন্নত আলী সারেং বাড়ির মোঃ ইউছুপের ছেলে আবদুর রহমান ইমন। এদের সহযোগী মিঠু পালিয়ে গেছে।

চরএলাহি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবদুর রেজ্জাক জানান, স্থানীয় লোকজন অপহৃত ২ প্রেস শ্রমিককে উদ্ধার করেছে।ঘটনার সাথে জড়িত ৪ অপহরণকারীকে আটক করে ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে নিয়ে রাখা হয়। রাতে কবিরহাট থানার ওসি মির্জা মোহাম্মদ হাসান ২ জন অপহৃত ও ৪ জন অপহরণকারীকে নিয়ে গেছে।

নিজস্ব প্রতিবেদক/২৩ জানুয়ারি

Leave a Reply

Your email address will not be published.