কবিরহাটে ছাত্রলীগ সভাপতিকে পিটিয়ে জখম

কবিরহাট: নোয়াখালীর কবিরহাট উপজেলা ছাত্রলীগের নব-নির্বাচিত সভাপতি জহিরুল ইসলাম রিয়াদ’এর ওপর হামলা চালিয়ে তাকে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে জখম করেছে একদল দূর্বৃত্ত। ঘটনায় সভাপতির মা মনোজা খাতুন আহত হয়েছেন। গুরুত্বর আহত অবস্থায় তাদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যা ৬টার দিকে বাটাইয়া ইউনিয়নের কাছারিরহাট-ওটারহাট সড়কে এ ঘটনা ঘটে।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আহত ছাত্রলীগ সভাপতি জহিরুল ইসলাম রিয়াদ জানান, সন্ধ্যায় সে তার মা’কে নিয়ে মোটরসাইকেল যোগে বাটাইয়া ইউনিয়নের কাছারিরহাট তার নানার বাড়ী থেকে নিজ বাড়ী ফিরছিল। পথে ওটারহাট বাজার সংলগ্ন বাটাইয়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি জসিম উদ্দিন শাহিনের বাড়ী এলাকায় পৌঁছলে শাহীন ও তার সমর্থক বেচুর নেতৃত্বে ৬/৭জন তার মোটরসাইকেলের গতিরোধ করে। পরে তারা তাকে মোটরসাইকেল থেকে নামিয়ে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে তার মাথা’সহ শরীরের বিভিন্ন অংশে জখম করে। এসময় তার মা বাঁধা দিতে গেলে হামলাকারিরা তাকেও পিটিয়ে জখম করে। পরে তাদের চিৎকারে স্থানীয়রা ছুঁটে আসলে হামলাকারীরা পালিয়ে গেলে স্থানীয় লোকজন তাদের উদ্ধার করে প্রথমে কবিরহাট ও পরে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে।

তিনি আরো অভিযোগ করেন, জসিম উদ্দিন শাহিন কবিরহাট উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি প্রার্থী ছিল। কিন্তু দল থেকে তাকে নির্বাচিত না করায় সে এই হামলার ঘটনা ঘটিয়েছে।

অভিযোগ অস্বীকার করে বাটাইয়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি জসিম উদ্দিন শাহিন বলেন, তিনি মঙ্গলবার সকালে তার বড় বোনের সাথে তাদের বাড়ী দাগনভূইয়া তে আছেন। এই হামলার সাথে তার কোন সম্পর্ক নেই। তার প্রতিপক্ষের কোন লোকজন রাজনৈতিক ভাবে তাকে বিপাকে ফেলতে তার বাড়ীর সামনে এই ঘটনা ঘটিয়েছে। তিনি এই হামলার সুষ্ঠ বিচার দাবী করছেন।

কবিরহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মির্জা মোহাম্মদ হাছান জানান, ঘটনায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

প্রসঙ্গত, গত ৬ই ফেব্রুয়ারি জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আসাদুজ্জামান আরমান ও সাধারণ সম্পাদক আবুল হাসনাত আদনান সাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জহিরুল ইসলাম রিয়াদ’কে কবিরহাট উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি করে কমিটি ঘোষণা করা হয়।

নিজস্ব প্রতিবেদক/এমআরআর

Leave a Reply

Your email address will not be published.