আমেরিকা যাওয়ার পথে কোম্পানীগঞ্জের যুবকের মৃত্যু

কোম্পানীগঞ্জ: অবৈধ পথে আমেরকিায় যাওয়ার পথে পানামা খালে ডুবে নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার আরমান হোসেন নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে।

রোববার বিকেলে আরমান হোসেনের সফর সঙ্গী বাবুলের মুঠোফোন পেয়ে খালাত ভাই ফয়সল তার মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত হয়। নিহত আরমান হোসেন উপজেলার রামপুর ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের এনামুল হকের ছেলে। আরমান হোসেন তিন ভাই তিন বোনের মধ্যে সকলের ছোট ছিল।

নিহত আরমান হোসেনের খালাতো ভাই ফয়সাল জানান, গত ২৭ জানুয়ারি সন্ধ্যায় আরমান হোসেন তার সাথে মুঠোফোনে বলেন কিছুক্ষণ পরে সে আমেরিকায় প্রবেশ করার জন্য পানামা খাল পাড়ি দেবে। আমেরিকায় প্রবেশ করে পুলিশের হাতে ধরা দেবে। ১০-১২ দিন জেলে থাকবে। জেলে থাকার কারণে কারও সাথে যোগাযোগ করা যাবে না বলে আরমান জানায়। এর পর তার সাথে আর কোন যোগাযোগ হয়নি।

পরবর্তীতে নিহত আরমান হোসেনের অপর তিন সফর সঙ্গীর মধ্যে বাবলু নামের একজন মুঠোফোনে জানায়, চার জনের মধ্যে তারা তিনজন পানামা খাল পাড়ি দিয়ে আমেরিকায় প্রবেশ করতে পেরেছে। কিন্তু প্রবল স্মোতের তোড়ে খালে পড়ে আরমান হারিয়ে গেছে। পরবর্তীতে ওই দেশের পুলিশ পানামা খাল থেকে আরমানের মৃতদেহ উদ্ধার করে। বর্তমানে নিহত আরমানের লাশ আমেরিকার টেক্সাস ইমেগ্রেশানে রয়েছে।

আমেরিকার টেক্সাস ইমেগ্রেশান থেকে লাশ বাংলাদেশে পৌছাতে হলে ১৫ হাজার ডলার (বাংলাদেশী টাকায় প্রায় ১২ লাখ টাকা) জমা দিতে হবে। যার কারণে সেখানকার কোন বাংলাদেশী আরমানের লাশ সনাক্ত করতে ইচ্ছা প্রকাশ করছে না।

নিহতের পরিবার সূত্রে জানা গেছে, সিলেটের মৌলভী বাজার জেলার কুলাউড়া উপজেলার দালাল আমিন উল্যাহর মাধ্যমে ২৫ লাখ টাকার চুক্তিতে আরমান হোসেনকে আমেরিকায় পাঠানোর সিদ্বান্ত নেয় তার আমেরিকা ফেরত বাবা এনামুল হক। চুক্তি মোতাবেক দালাল আমিন উল্যাহ আরমানসহ চার জনকে গত বছরের ২৯ জুন চট্টগ্রাম বিমান বন্দর থেকে প্রথমে ওমান যায়। সেখান থেকে ইথিউপিয়া, আফিছাওয়া, বুঝামবুডা, বলিভিয়া, কলম্বিয়া, পানামা, মেক্সিকো নিয়ে যায়।

দালাল আমিন উল্যাহর সাথে কথা ছিল ক্যালিফোর্নিয়া বর্ডার দিয়ে আরমান হোসেনকে আমেরিকায় পৌছাবে। চুক্তি ছিল প্রথমে ২৩ লাখ টাকা। মাঝ পথে দালাল তাদেরকে আটক করে আরও ২ লাখ টাকা বাড়িয়ে ২৫ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়ে যায়।

সোমবার সকালে আরমান হোসেনের গ্রামের বাড়িতে গিয়ে দেখা গেছে পরিবারের সবার মাঝে হতাশা। আরমানের মা-বাবা তার মৃত্যুর সংবাদ জানে না। তাদেরকে জানান হয়েছে আরমান অসুস্থ্য হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে। বড় ভাই রাসেল ও খালাত ভাই ফয়সল জানে ১৭দিন পুর্বে (২৭ জানুয়ারী) রাতে পানামা খাল পাড়ি দেয়ার সময় আরমানের মৃত্যু হয়েছে।

নিজস্ব প্রতিবেদক/এমআরআর/১৩ ফেব্রুয়ারি

Leave a Reply

Your email address will not be published.